img

Follow us on

Monday, Mar 04, 2024

Ram Mandir: ‘‘রাম ও রামায়ণ থেকে আলাদা দেশ কল্পনা করা অসম্ভব’’, সংসদে বললেন অমিত শাহ

রাম মন্দিরের ওপর ধন্যবাদ প্রস্তাব মোদি সরকারের, ভাষণ দিলেন অমিত শাহ...

img

অমিত শাহ। ছবি—ফাইল

  2024-02-10 17:04:42

মাধ্যম নিউজ ডেস্ক: শনিবার সংসদের বাজেট অধিবেশনের শেষ দিনে রাম মন্দির (Ram Mandir) নিয়ে ধন্যবাদ প্রস্তাব আনল মোদি সরকার। এই প্রস্তাবের জন্য চার ঘণ্টা সময় বরাদ্দ করা হয়েছে। রাম মন্দিরের নির্মাণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হবে। রাম মন্দিরকে (Ram Mandir) ভারতের প্রাচীন ও মহান সংস্কৃতির প্রতীক হিসেবে এই বর্ণনা করা হবে এই প্রস্তাবে। এক এক করে বিজেপি সাংসদরা নিজেদের বক্তব্য পেশ করছেন প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত। বিকাল পাঁচটায় ধন্যবাদ প্রস্তাবে দুই কক্ষে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। জানা গিয়েছে এই ধন্যবাদ প্রস্তাবে থিম রাখা হয়েছে 'এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত' বিজেপি সাংসদ সত্যপাল সিং লোকসভায় এই প্রস্তাব আনেন। ইতিমধ্যে এই প্রস্তাবের ওপর বক্তব্য রেখেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। প্রসঙ্গত, ২২ জানুয়ারি রাম মন্দিরের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

হাজার বছরের ইতিহাসে লেখা থাকবে রাম মন্দিরের উদ্বোধনের দিনটি 

লোকসভায় রাম মন্দির (Ram Mandir) নিয়ে আলোচনা চলাকালীন এদিনই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অমিত শাহ সুপ্রিম কোর্টের রায়কে ভারতের ধর্মনিরপেক্ষতার প্রতিফলন বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘‘২২ শে জানুয়ারি দিনটি আগামী হাজার হাজার বছর পর ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে। কারণ এই দিনেই সমস্ত রাম ভক্তদের আশা ও আকাঙ্ক্ষা পূরণ হয়েছে।’’ অমিত শাহ এদিনের ভাষণে আরও বলেন, ‘‘রাম জন্মভূমির ইতিহাস অনেক দীর্ঘ। ১৫২৮ সাল থেকে এই যুদ্ধ চলছে। প্রায় ৫০০ বছর পর আইনি লড়াই শেষ হয়েছে। আমি স্মরণ করতে চাই সমস্ত যোদ্ধাদের যারা রাম মন্দির আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। এই স্বপ্ন মোদিজির আমলেই পূরণ হওয়ার কথা ছিল। রাম মন্দির নির্মাণকে ধর্মের সঙ্গে যুক্ত করা উচিত নয়’। তাঁর আরও সংযোজন, ‘‘রাম ও রামায়ণ ছাড়া দেশ কল্পনা করা যায় না। দেশের সংবিধানের থেকে শুরু করে মহাত্মা গান্ধীর আদর্শ ভারতের স্বপ্ন পর্যন্ত রামের নামেই গড়ে উঠেছে।’’

৩৩০ বছর পরে আইনি লড়াই শেষ হয়েছে

অমিত শাহ এদিন আরও বলেন, ‘‘ভারতীয় সংস্কৃতি এবং রামায়ণকে কখনও আলাদাভাবে দেখা হয়নি। রামায়ণ অনেক ভাষা, সংস্কৃতি এবং ধর্মে উল্লেখ আছে। রাম ও রামায়ণ থেকে আলাদা দেশ কল্পনা করা অসম্ভব। ১৫২৮ সাল থেকে এই যুদ্ধ চলছে। কয়েক দশক ধরে লড়াই চলে আসছে । ১৮৫৮ সাল থেকে আইনি লড়াই চলছিল। ৩৩০ বছর পর, আইনি লড়াই আজ শেষ হয়েছে এবং রামলালা (Ram Mandir) তাঁর গর্ভগৃহের ভিতরে বসে আছেন। বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রী মোদি যা বলেন তাই বাস্তবে করে দেখান।’’

 

দেশের খবর, দশের খবর, সব খবর, সবার আগে পেতে ফলো করুন আমাদের Facebook, Twitter এবং Google News পেজ।

Tags:

Madhyom

Amit Shah

PM Modi

bangla news

Bengali news

Ram Mandir

loksabha

thanks motion on Ram Mandir


আরও খবর


খবরের মুভি


ছবিতে খবর